Reading Time: 2 minutes

23 এপ্রিল,2020 , পবিত্র রমজান মাস শুরু হওয়ার দিন এই সময়ে দিনের দুটি খাদ্য – সুহুর এবং ইফতার হল সমগ্র বিশ্ব জুড়ে উপোসকারী মুসলিমদের একমাত্র খাদ্য এর মানে, সমগ্র দিনের পুষ্টিকে এই দুটি খাদ্যের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে ডায়াবেটিস আছে এমন কেউ যিনি রমজান মাস চলাকালীন উপোস করছেন, তাকে সুহুর চলাকালীন তার খাদ্যাভ্যাসে ও তার দৈনন্দিন অভ্যাসে এবং ব্যক্তিগত যত্ন সম্পর্কিত অভ্যাসে কিছু পরিবর্তন করতে হবে

সুহুর হল এমন একটি খাদ্য যা সূর্যোদয়ের পূর্বে খাওয়া হয়, এর পরে যারা উপোস করছেন তারা কোনোরকম খাদ্য বা জল খেতে পারবেন পারবেন না এর ফলস্বরূপ, সুহুর দিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাদ্য হয়ে দাঁড়ায় তাই আপনি সুহুরে যাই খান না কেন, তাকে সারাদিনে আপনার উদ্দীপনা বজায় রাখার জন্য যথেষ্ট স্বাস্থ্যকর হতে হবে

এখানে কিছু পদ্ধতি দেওয়া হল যা আপনার সুহুরকে স্বাস্থ্যকর করে তুলবে

  1. আপনার রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা পরীক্ষা করুন

ঘুম থেকে ওঠার পর আপনার সূর্যোদয়ের পূর্ববর্তী খাদ্য খাওয়ার পূর্বে নিশ্চিত থাকুন যে আপনি আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা পরীক্ষা করবেন এটা যে শুধু আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা নজরে রাখতে সাহায্য করবে তা নয়, এটা আপনাকে এই সিদ্ধান্ত নিতেও সাহায্য করবে যে আদৌ আপনার শর্করার মাত্রা সমস্ত দিন উপোস করার জন্য যথেষ্ট ভাল আছে কিনা আপনার চিকিৎসকই হচ্ছেন শ্রেষ্ঠ মানুষ যিনি আপনাকে বলতে পারেন যে কোন মাত্রাটি আপনার দেখা উচিত যদি আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা স্বাস্থ্যকর সীমার মধ্যে না পড়ে, তবে কোনো রকম স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা এড়িয়ে চলার জন্য আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলুন

  1. সালফার সমৃদ্ধ খাবার

কিছু খাবার যেমন ডিম, ওটমিল (কুইক ওটসের বদলে মোড়ানো বা স্টিল কাট ওটস ব্যবহার করুন) এবং রুটির মধ্যে একটি গোটা দিন উপোস করে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় পুষ্টিপদার্থ রয়েছে যা রক্তে শর্করার মাত্রা কমে যাওয়ার মত কোনো জটিলতা সৃষ্টি করতে দেয়নাপ্রচুর পরিমাণে জল খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে যদিও দিনে আট গ্লাস জল খাওয়া ভাল, তবে আপনি সুহুরের জন্য চার গ্লাস খেতে পারেন এইরকম করলে আপনার এনার্জি সমস্ত দিনব্যাপী বেশী থাকবে এবং আপনি জলযোজিত থাকতে পারবেন

 একটি আদর্শ সালফার সমৃদ্ধ থালায় যা অবশ্যই থাকা উচিতঃ

  1. দুটি রুটি অথবা এক বাটি ওটমিলঃ কার্বহাইড্রেটের জন্য
  2. ডিম, মাংস, ডাল, অঙ্কুরিত ছোলা, সয়া অথবা পনিরঃ এরা প্রোটিনের উৎকৃষ্ট উৎস
  3. ফল এবং সব্জি যেমন- আপেল, পেঁপে, পেয়ারা,সবুজ পাতাযুক্ত সব্জি ইত্যাদি
  4. জলঃ যা আপনাকে ইফতার পর্যন্ত জলযোজিত রাখবে

সুহুর প্রস্তুত করার সময় কিছু বিষয় মাথায় রাখা উচিতঃ

  1. খাবারে তেলের পরিমাণ দুই চা চামচে সীমাবদ্ধ করুন
  2. খাবারে লবণের পরিমাণ সীমাবদ্ধ করুন
  3. শুধু জল পান করা বাদ দিয়ে, চেষ্টা করুন যে সমস্ত খাবার আপনি রান্না করছেন যেমন ডাল, ইত্যাদিতে জল ব্যবহার করতে
  4. সুহুর যত দেরীতে পারেন খান, যদি আপনি 10 ঘন্টার বেশি সময় ধরে উপোস করেন।
  1. খাওয়ার পর আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা পরীক্ষা করুন

আপনার খাবারের দুই ঘন্টা পরে আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা নিশ্চিতভাবে পরীক্ষা করুন এটা দেখার জন্য যে আপনার শর্করার মাত্রা একটা স্বাস্থ্যকর সীমার মধ্যে আছে কিনা

সূত্র:

  1. Can I fast with diabetes during Ramadan? – Diabetes Voice [Internet]. IDF. 2020 [cited 5 March 2020]. Available from: https://diabetesvoice.org/en/caring-for-diabetes/can-i-fast-with-diabetes-during-ramadan/

Loved this article? Don't forget to share it!

Disclaimer: The information provided in this article is for patient awareness only. This has been written by qualified experts and scientifically validated by them. Wellthy or it’s partners/subsidiaries shall not be responsible for the content provided by these experts. This article is not a replacement for a doctor’s advice. Please always check with your doctor before trying anything suggested on this article/website.