Reading Time: 4 minutes

এই দুনিয়াটা আপনার কাছে ঝিনুকের মতো মনে হলে আপনার সর্বোত্তম জীবনযাপনের দিনগুলিতে ডায়াবেটিস রোগটিকে কোনো অবস্থায়েই কি প্রতিবন্ধক হতে দেওয়া উচিত?  আপনি উপযুক্তভাবে প্রস্তুত হলেই, না, আপনি তা হতে দেবেন না। সর্বশেষ আমরা (2015 সাল) যাচাই করে দেখেছি, 62 মিলিয়নেরও বেশি ভারতীয় যারা এক বা অন্য ধরনের ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত ছিলেন এবং 2030 সালের মধ্যে এই সংখ্যা 98 মিলিয়ন স্পর্শ করবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই পরিসংখ্যানগুলি পড়তে ভয়ঙ্কর মনে হতে পারে কিন্তু অবশ্যই তার মানে এই নয় যে আপনি পৃথিবী ভ্রমণের পরিকল্পনাগুলি সব ঝিমিয়ে পড়বে।

আমরা মানছি যে আপনি যদি জরুরি অবস্থাগুলি পরিচালনা করার জন্য যথেষ্টভাবে প্রস্তুত না হন তবে কয়েকটি হতাশাব্যঞ্জক ঘটনা ঘটতে পারে, কিন্তু সেই জন্যেই তো আমরা এখানে আছি! এখানে একটি ছুটির অবকাশে বেড়াতে যাবার আগে আপনাকে যা করতে হবে তার সম্পূর্ণ যাচাই-তালিকা দেওয়া হল।

1. আপনার ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলুন:

আপনার সফরের অন্তত 4-6 সপ্তাহ আগে আপনার স্বাস্থ্যগত সেবা ও পরিচর্যাকারীর সাথে একটি সাক্ষাৎকারের দিন স্থির করুন এবং আপনার সফরের সম্পূর্ণ গমন-পথটি তাকে দেখান, যাতে তারা আপনার ইন্স্যুলিন মাত্রায় আপনার প্রয়োজনীয় পরিবর্তনগুলি অনুমান করতে পারে। এটি শারীরিক ব্যায়াম জনিত ক্রিয়াকলাপ, খাদ্য, সময় অঞ্চল, আবহাওয়ার অবস্থা ইত্যাদি সহ বিভিন্ন কারণের উপর নির্ভর করে। আপনি যখন সফর করছেন তখন আপনার ডাক্তারের কাছ থেকে একটি চিঠি এবং একটি প্রেসক্রিপশনও নিতে হবে। চিঠিটিতে আপনার ডায়াবেটিসের জন্য কী করতে হবে তার ব্যাখ্যা এবং ডাক্তারের সঙ্গে জরুরি যোগাযোগের বিশদ বিবরণ আছে, তবে প্রেসক্রিপশনে আপনার ওষুধ, সিরিঞ্জ, বিকল্প ওষুধ ইত্যাদি তালিকাবদ্ধ রয়েছে। সফরের সময় সংক্রমণ বা এলার্জি হলে সেই ঝুঁকি এড়াতে প্রয়োজনীয় টিকাগুলি সঠিক সময়েই নিয়ে নিন।

2. আপনার উদ্বেগজনিত বিষয়গুলি শেয়ার করুন:

আপনি যদি বিমানে বা জাহাজে ওঠেন, অথবা এমনকী একটি রাস্তা দিয়ে / পাহাড়ে চড়ার পরিকল্পনা নিয়ে থাকেন তবে আপনার সফর পরিচালনাকারীদের আগেই আপনার ডায়াবেটিস-বান্ধব আহারের খাবারতালিকা সম্পর্কে জানিয়ে রাখুন, অথবা আপনার সফরের অংশীদারদের আপনার খাদ্যজনিত নির্দিষ্টকরণগুলি সম্পর্কে জানান। এছাড়াও, নিশ্চিত করুন যে আপনার ইন্স্যুলিন অন-অফ-বোর্ড উভয় পথেই শান্ত রাখার জন্য সঠিক ব্যবস্থা রয়েছে।

3. জরুরি ক্ষেত্রে:

জরুরি অবস্থা ঘটলে সে ক্ষেত্রে যত্ন ও পরিচর্যা এবং সতর্কতা সম্পর্কে আপনার সফর সঙ্গী (দের)  আগেই জানিয়ে দিন। আরও ভালো হয়, একটি নির্দিষ্ট কাগযে এটি লিখে রাখলে, জরুরি অবস্থা সহ, আপনার ডাক্তারের যোগাযোগের বিবরণ এবং অন্যান্য দরকারী পদক্ষেপের সাথে সাথে আপনার ওষুধগুলিও লিখে রাখুন। এটা্র কপি হাতের নাগালে রাখুন।

4. একটি আদর্শ ইন্স্যুলিন পাউচ:

আপনার ইনসুলিন পাউচে নিম্নলিখিত জিনিসগুলি থাকা উচিত:

  • সফর কত দিনের সেটার উপর ভিত্তি করে ইনস্যুলিন পেন এবং অতিরিক্ত রিফিল কার্তুজ ইত্যাদি নিন
  • নতুন সূঁচ
  • এক বোতল স্পিরিট
  • তুলা
  • জরু্রি অবস্থায় করণীয় পদ্ধতির বিশদগুলির একটি অনুলিপি (আগে উল্লিখিত)

5. স্ন্যাক্স জাতীয় খাবার বহন করুন:

সহজে নেওয়ার মতো ফলের রসের বোতলগুলি, কিছু ক্র্যাকার, গ্লুকোজ ট্যাবলেট বা আপনার ব্যাগে রাখার জেলগুলি, ঠিকভাবে সঙ্গে রাখুন।

6. হালকা প্যাক বা ছোটো প্যাক করবেন না:

এবং এর মানে , আমরা আপনার চিকিৎসা সরঞ্জামের কথাই বলছি। আপনার নিয়মিত ব্যবহারের, সিরিঞ্জ, রক্ত-​​শর্করার মনিটর, স্ট্রিপ-গুলি, মিটার এবং পাম্প সঙ্গে রাখুন। উপরন্তু, একটি অতিরিক্ত দুই সপ্তাহের সরবরাহ বহন করুন: না নিয়ে গিয়ে দুঃখিত হওয়ার চেয়ে নিরাপদ হওয়া ভাল।

7. আপনার ইনস্যুলিন সঠিকভাবে সংরক্ষণ করুন

ইনস্যুলিন সংরক্ষণের জন্য আদর্শ তাপমাত্রা 4-6 ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের মধ্যে; মূলত, এটি 25 ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের নীচে রাখা বাধ্যতামূলক। যদি এটি খুব ঠান্ডাতে রাখা হয়, এটি জমে যাবে, এবং খুব গরম হলে, এটি ভেঙে যাবে। আপনার ইনসুলিন সঠিক মাত্রায় রাখতে সাহায্য করতে পারে এমন একটি ভাল ইনসুলেটেড শীতল ব্যাগ কিনে তাতেই রাখুন, এমনকী যদি আপনি কয়েক দিনের জন্য একটি আইস প্যাক বা ফ্রিজ ব্যবহার করতে না পান। অত্যন্ত চরম তাপমাত্রা থেকে এটি সংরক্ষণ একেবারে নিশ্চিত করুন। কুলার ব্যাগের কোনও কম্পার্টমেন্ট নেই এমন ক্ষেত্রে, আপনার ইনস্যুলিনটি মোড়াতে পুনরায় ব্যবহারযোগ্য আইস জেল প্যাকগুলি এবং কিছু পাতলা তোয়ালে রাখুন।

8. যেখানে যাচ্ছেন সেই সময় অঞ্চল সম্পর্কে জেনে নিন:

আপনি সময় অঞ্চল পরিবর্তন করলে, আপনার ডাক্তারের সঙ্গে আগে থেকে ইনস্যুলি্নের মাত্রা পরিকল্পনা করে রাখুন; তার সাথে চিকিৎসার সময়সূচী সামঞ্জস্য করতে তাঁকে জিজ্ঞাসা করুন। যেদিন আপনি ভ্রমণ করেন, সেক্ষেত্রে আপনি পরিবর্তিত সময়কালের উপর ভিত্তি করে আপনার ডোজটি সামঞ্জস্য করতে পারেন কারণ আপনি বিমানে উড়তে কিছুটা সময় হারিয়েছেন।

9. সক্রিয় থাকুন কিন্তু সতর্কও থাকুন:

সাধারণত, সফরের সময়ে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি শারীরিক ক্রিয়াকলাপ হয়েই থাকে, তাই আপনার রক্ত ​​শর্করার মাত্রাগুলি আরও বেশি করে মনে রাখুন।

  • প্রায়শঃই এটি পরীক্ষা করে দেখুন এবং সর্বদা কিছু খাবার সঙ্গে রাখুন।
  • আপনার যাত্রা দীর্ঘ হলে, এক জায়গায় বসে থাকবেন না: চলাফেরা করুন, শরীর এদিক-ওদিকে প্রসারিত করুন এবং বিশেষ করে আপনার পায়ে মনোযোগ দিন।
  • যে কোনও আঘাত, কাট বা প্রদাহের জন্য সতর্ক থাকুন।
  • আরামদায়ক জুতা এবং মোজা পরুন আর একটি অতিরিক্ত জোড়া বহন করুন।

10. যত্ন সহকারে:

ছুটিতে সফর করতে থাকাকালীন, আপনি হয়তো স্থানীয় খাবারের নমুনা পরীক্ষা করার জন্য প্রলুব্ধ হতে পারেন, কিন্তু মনে রাখবেন, সংযমই হল আপনার সুস্থ থাকার চাবিকাঠি। কিছুতেই খুব বেশি মত্ত হবেন না, বিশেষ করে অনন্য এবং অজানা যা কিছু উপাদান বিষয়ে সতর্ক হোন।

এছাড়াও, আপনার অ্যালকোহল ব্যবহারের বিষয়ে সচেতন থাকুন কারণ ছুটির সময়ে সফরে অবাধে মদ্য-পান হতে পারে। অ্যালকোহল-এ সাধারণত ক্যালোরি যুক্ত হয়, এবং আপনি নিশ্চয়ই আপনার গ্লুকোজ মাত্রা বিপজ্জনকভাবে হেরফের হোক তা চান না।

11. ভাষাগত বাধা দূর করুন:

সফরকালে, আপনার গন্তব্যের স্থানীয় ভাষাতে আপনি মূল বিষয়গুলি নিশ্চিত করুন। “হাসপাতাল কোথায়?” বা “আমার ডায়াবেটিস আছে” এমন কিছু বলার বিষয়ে আপনাকে জিজ্ঞাসা করতে হবে। আপনি প্ল্যাকার্ড লিখে রাখতে পারেন। আপনার মোবাইলে একটি অনুবাদ হাতিয়ারও ব্যবহার করা যেতে পারে। জরুরী অবস্থায় আপনার কী অসুবিধা হচ্ছে তা বোঝাতে এটি গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার।

12. আপনার মেডিকেল আইডি পরে থাকুন:

অথবা, শুধু সকলকে আপনার কী ধরনের ডায়াবেটিস হয়েছে তা জানাতে সবসময় এটি বহন করুন।

আপনি যখন আপনার মাত্রা বাদ দিয়ে যাবেন তখন কী করবেন:

আপনি যদি ইনস্যুলিনের মাত্রা বাদ দিয়ে যান, তবে এটি 2 ঘণ্টার মধ্যে যেভাবে হোক নিয়ে নিন তবে যদি এটি সেই সময়েও পেরিয়ে যায়, তবে রক্তের শর্করার মাত্রা বিপজ্জনকভাবে হেরফের হতে পারে বলে তখনই আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলুন। এই ক্ষেত্রে, আপনার শর্করার মাত্রা নীচে নামানর জন্য আপনাকে দ্রুত-কার্যকরী ইনস্যুলিন নিতেই হবে।

ইনস্যুলিন-এর মাত্রা বেশি হয়ে গেলে:

একটি আকস্মিক অত্যধিক মাত্রার ক্ষেত্রে, কিছু দ্রুত কার্যকর শর্করা (গ্লুকোজ, মিষ্টি) অবিলম্বে খেতে হয়। সবচেয়ে বেশি গুরুতর অবস্থায়, আপনি বিভ্রান্ত বোধ করতে পারেন, ভুল বকতে পারেন বা এমনকী অজ্ঞান অবস্থাও হতে পারে।

যত জলদি সম্ভব একজন মেডিকেল উপদেষ্টা্র সঙ্গে কথা বলুন।

মনে রাখবেন এই যাচাই-তালিকা সঙ্গে রাখুন, মেনে চলুন এবং একটি মানসিক চাপ মুক্ত অবকাশ সফর কাটান নিশ্চিত করুন!

 

তথ্যসূত্র:

  1. Gale, Jason (November 7, 2010). “India’s Diabetes Epidemic Cuts Down Millions Who Escape Poverty”, American Diabetes Association Journal

Loved this article? Don't forget to share it!

Disclaimer: The information provided in this article is for patient awareness only. This has been written by qualified experts and scientifically validated by them. Wellthy or it’s partners/subsidiaries shall not be responsible for the content provided by these experts. This article is not a replacement for a doctor’s advice. Please always check with your doctor before trying anything suggested on this article/website.