Reading Time: 2 minutes

অশ্বিনী এস কানাড়ে, রেজিস্টার্ড ডায়েটিশিয়ান এবং প্রত্যয়িত বিশিষ্ট ডায়াবেটিস শিক্ষাবিদ তাঁর 17 বছরের অভিজ্ঞতা সহ এটির বিশেষজ্ঞপর্যালোচনা করেছেন

প্রতিদিন ঘন ঘন হাঁটলে তবেই স্বাস্থ্য ভালো থাকে হিপোক্রেটিসএর সময় থেকে, হাঁটলে কী কী ফললাভ হয় তা সবার কাছেই পরিচিত হয়েছে এতে আপনার মন প্রফুল্ল থাকতে পারে, আপনার পেশী টোন, সবলতা এবং আয়ু বৃদ্ধি হয় হাঁটা বিপাক পদ্ধতিকে সক্রিয় এবং উন্নত করে এবং আপনার শরী্রের সমতা আকৃতি সঠিক রাখে কিন্তু এখানে এটি সম্পর্কে দুর্দান্ত যে ব্যাপারটা সম্পর্কিত রয়েছে তা হলএটি আপনার রক্তশর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে!

এই সহজ দৈনন্দিন কার্যকলাপ অনেকের জীবনযাত্রায় রূপান্তর এনেছে যাইহোক, ডায়াবেটিস মোকাবিলা করার জন্য এই ব্যায়াম ব্যবহার করার সময়, নির্দিষ্ট সময় অবধি করাটাই এর  সুবিধাগুলি পাওয়ার চাবিকাঠি

সময় গুরুত্বপূর্ণ

প্রতিদিন হাঁটা দারুণ কাজ, কিন্তু প্রতিটি খাবার পরে হাঁটা আরও ভালো গবেষণায় দেখা যায় যে যারা প্রতিদিন প্রতিবার আহারের পরে 10 মিনিটের জন্য হাঁটেন তাদের প্রতিদিন 30 মিনিটের জন্য একবার হাঁটার চেয়ে বেশি ফললাভ হয়[1] সঠিক সময় আপনার রক্তের গ্লুকোজ মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সহায়ক হয়ে থাকে

আপনি হাঁটার সময় আপনার রক্তের গ্লুকোজ মাত্রায় কী ঘটে তা কেন হয় বুঝতে নীচের অংশটি পড়ুন

শরীরের কর্মরত অবস্থায় থাকা

বিশ্রাম করতে কোনো শরীরের অনেক শক্তির প্রয়োজন হয় না কিন্তু যে কোনো ধরনের ক্রিয়াকলাপের জন্য আপনার শরীরের শক্তির প্রয়োজন হয়, যা আপনার রক্তে গ্লুকোজের ব্যবহার করে পেশীগুলিকে সরবরাহ করা হয় গতির সময়ে শরীরের শক্তির প্রয়োজনীয়তাগুলি পূরণ করতে হৃদস্পন্দনের হার বৃদ্ধি পায় যাতে সারা শরীর জুড়ে বেশি রক্ত ​​পাম্প করতে হয় হাঁটার মত একটি সরল ক্রিয়াকলাপের জন্য, আপনার হৃদস্পন্দনের হার প্রতি মিনিটে 70টি থেকে 100টি স্পন্দন পর্যন্ত বৃদ্ধি পায় রক্তের প্রবাহের গতি বৃদ্ধির জন্য আপনার রক্তবাহী নালীগুলিও প্রসারিত হয়

কীভাবে এটি রক্ত-​​শর্করার মাত্রাকে প্রভাবিত করে

খাবার খাওয়ার পরে রক্তের গ্লুকোজ মাত্রা বেড়ে যায় যেমন এই রকম বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করতে, শরীর থেকে ইনস্যুলিন নিঃসরণ হয় আপনার যদি ডায়াবেটিস থাকে তবে পরিস্থিতিটি সহজ হয় না, কারণ আপনার শরীরের ইনস্যুলিন প্রতিরোধের ফলে রক্তশর্করার নিয়মিতকরণে বাধা দেয় এবং যখন অনিয়ন্ত্রিত অবস্থায় থাকে, রক্তশর্করার হঠাৎ মাত্রা বৃদ্ধি হলে তাতে রক্তবাহী নালীগুলির ক্ষতি করতে পারে

কিন্তু যখন আপনি খাবার খাওয়ার ঠিক পরেই হেঁটে যান, অতিরিক্ত রক্তশর্করা আপনাকে হাঁটতে শক্তি উৎপাদনে ব্যবহার করা হয়, রক্তশর্করার হঠাৎ মাত্রা বৃদ্ধির ক্ষমতা নষ্ট করে গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে আহারের পরে অল্প হাঁটা রক্তশর্করা 12% কমিয়ে দেয়[2]

রূপান্তর করতে ছোটো পদক্ষেপ

আহারের পরে সংক্ষিপ্ত হাঁটার ফল হল যে এটি সহজেই আপনার জীবনযাপনে অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে আপনার অফিসের চারপাশে বা সিঁড়ির ওপরে এবং নীচে 10 মিনিটের একটি সংক্ষিপ্ত ঘোরা ফেরা বা ওঠানামা করলে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে এই খানিকক্ষণের প্রবল চেষ্টাকৃত কার্যকলাপে আপনি ক্লান্ত হবেন না অধিকন্তু, জীবনযাপনের এই ছোট্ট পরিবর্তনগুলি রোজকার নানা কাজে সামঞ্জস্য বজায় রাখতে সাহায্য করে কারণ এটি একটিসংক্ষিপ্ত অভ্যাসহয়ে ওঠে

একটিসংক্ষিপ্ত অভ্যাসহল খুব ছো্টো ইতিবাচক আচরণ যা আপনি নিজেকে প্রতিদিন করতে বাধ্য করেন; এরবিফলতার অতি ক্ষুদ্রতাজনিত প্রকৃতিটি ওজনহীন, বিভ্রান্তিমূলকভাবে শক্তিশালী এবং উচ্চতর অভ্যাস তৈরির কৌশল তৈরি করে স্টিভেন গুয়েস তাঁর লেখা বই মিনি হ্যাবিটস –  ‘সংক্ষিপ্ত অভ্যাস‘, সুদূরপ্রসারী ফলাফল এই নিয়ে লিখেছেন, তারপরে আপনার নিজের উপর বিশ্বাস রাখা ছাড়া অন্য কোনও বিকল্প থাকবে না

হাঁটার সেরা সময়

হাঁটার  সেরা সময় হল প্রতি্বার আহারের ঠিক পরেই হাঁটা খুবই ভালো কিন্তু যদি কিছু কারণে আপনাকে হাঁটা বাদ দিতে হয় তবে বাধ্যতামূলকভাবে সেদিন ডিনারের পরেই 10 মিনিটের জন্য আপনাকে হাঁটতেই হবে ডিনার করার পরেই হাঁটা সবচেয়ে কার্যকর বলে মনে করা হয় কারণ সূর্যাস্তের পরে বিপাক পদ্ধতি আরও বেশি ধীরগতি হয়ে যায় ডায়বেটোলজিস্ট কনসালট্যান্ট, গজ ডায়াবেটিস সেন্টারের ডাঃ রোশানি গজ বলেন, ডিনারের পর 10-15 মিনিট হাঁটার পরে পোস্ট প্রান্ডিয়াল শর্করা 20-25% কমে যায়

সময়ের চাকায় আবদ্ধ জীবন যাত্রায়, ছোটোখাটো দৈনিক পরিবর্তন করে আকর্ষণীয় ফলাফল পেতে খুব অসুবিধা করে না প্রতিবার আহারের ঠিক পরেই 10 মিনিটের জন্য হাঁটা এমনই এক অভ্যাস এটা করতে প্রতিশ্রুত হন এবং আপনার জীবনযাত্রায় রূপান্তর লক্ষ্য করে দেখুন

Loved this article? Don't forget to share it!

Disclaimer: The information provided in this article is for patient awareness only. This has been written by qualified experts and scientifically validated by them. Wellthy or it’s partners/subsidiaries shall not be responsible for the content provided by these experts. This article is not a replacement for a doctor’s advice. Please always check with your doctor before trying anything suggested on this article/website.