Reading Time: 6 minutes


ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের প্রায়শই অন্যান্য সমস্যাগুলি যা এটির সাথে আসে তার সাথে লড়াই করতে হয়, সর্বাগ্রে ওজন বৃদ্ধি বা হ্রাস। এই শর্তগুলির মধ্যে যে কোনও একটি স্বাস্থ্যের অবনতির ইঙ্গিত দেয়। সাধারণত, দ্রুত এবং অজ্ঞাত কারণে ওজন হ্রাস প্রাক-ডায়াবেটিস বা ডায়াবেটিসের লক্ষণ। এছাড়া, স্থূলতাও ডায়াবেটিসের একটি ঝুঁকির কারণ। অন্যদিকে, ওজন বৃদ্ধি ইতিমধ্যে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের সমস্যা হিসাবেও দেখা হয়। ডায়াবেটিসের কোন পর্যায়ে বা আপনার ওজনের মাত্রাটি কোন দিকে রয়েছে সেই বিষয়টি বিবেচনাধীন নয়, আমরা জানি যে নিজেকে অতিরিক্ত চাপ না দিয়ে এই সমস্যাগুলি মোকাবেলা করা গুরুত্বপূর্ণ।

প্রাপ্ত বয়স্কদের ওজন হ্রাস বা বৃদ্ধি নিয়ে নিয়মিত সহায়তা করার জন্য ডায়েট এবং শারীরিক ক্রিয়াকলাপের বিকল্পগুলির আধিক্য দ্বারা বেশ কয়েকটি গাইডলাইন রয়েছে যেগুলি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত লোকেদের ক্ষেত্রে সরাসরি প্রয়োগ করা যায় না। অতএব, আমরা ওজন, ডায়াবেটিস এবং তাদের পারস্পরিক সম্পর্ক নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছি, যা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত মানুষকে বিব্রত করে। ডায়াবেটিসের মতো অবস্থাকে দক্ষতার সাথে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হতে ওজন সংক্রান্ত বিষয়গুলির ফিজিওলজি বোঝা প্রয়োজন। আসুন আপনার ডায়াবেটিস-সম্পর্কিত ওজন সংক্রান্ত সমস্যাগুলি এবং কিভাবে এগুলি কার্যকরভাবে নিয়ন্ত্রণ করবেন তা একবার দেখে নেওয়া যাক।

ওজন বৃদ্ধির ফিজিওলজি

“যদি আপনার ওজন বেশি হয় বা আপনি যদি স্থূল হয়ে থাকেন তবে আপনার ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে” – আপনি যদি ডায়াবেটিসের সাথে পরিচিত হন তবে আপনি সম্ভবত ইতিমধ্যে এই বক্তব্যটি শুনেছেন। স্থূলত্ব এবং অতিরিক্ত ওজন হল স্ট্যান্ডার্ড সমস্যা যা ডায়াবেটিসের কারণ হতে পারে। তবে এ পর্যায়ে তারা অবশ্যই একা কাজ করে না। অন্যান্য বেশ কয়েকটি ঝুঁকির কারণ এতে অবদান রাখতে পারে এবং অতিরিক্ত ওজন না থাকলেও কারোর এই অবস্থার বিকাশ হতে পারে।

ডায়াবেটিসের সাথে ওজনের দ্বিতীয় সংযোগ তখন ঘটে যখন ওজন হ্রাস ডায়াবেটিসের সুস্পষ্ট লক্ষণ হিসাবে প্রকাশিত হয়। এটি মূলত তখন ঘটে যখন অগ্ন্যাশয় পর্যাপ্ত ইনসুলিন উৎপাদন করে না, বা যখন ইনসুলিন সঠিকভাবে কাজ করে না। ফলস্বরূপ, শরীর গ্লুকোজ থেকে বঞ্চিত হয় এবং শক্তির জন্য চর্বি কোষ এবং পেশীর ব্যবহার শুরু করে। ডায়াবেটিসের এই পর্যায়ে এভাবেই একজনের ওজন হ্রাস পায়।

ডায়াবেটিসের কারণে আপনার ওজন বাড়তে পারে?

ঘন ঘন প্রস্রাব, বিরক্তির বৃদ্ধি এবং ক্লান্তি ইত্যাদির মতো অন্যান্য উপসর্গগুলির পাশাপাশি দ্রুত ওজন হ্রাসের দ্বারা ডায়াবেটিসকে লক্ষণযুক্ত করা হয়। ওজন হ্রাসের সাথে ডায়াবেটিসের এই সংযোগ অবশ্যই শনাক্তকরণকে সহজ করে তোলে। যাইহোক, এটি ডায়াবেটিসের প্রথম পর্যায়ে বা প্রাক-ডায়াবেটিসের সময়ে সীমাবদ্ধ হয়ে গেছে। ডায়াবেটিসের পূর্ণাঙ্গ প্রকাশ কিছু উল্লেখযোগ্য ওজন বাড়ানোর সমস্যাগুলি প্রদর্শন করতে পারে।

আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা বেশি থাকাকালীন, অব্যবহৃত অবস্থায় থাকা ইনসুলিনের ক্রমবর্ধমান ভাণ্ডারও থাকছে (কারণ এটি কার্যকরভাবে কাজ করছে না)। এই অব্যবহৃত উদ্বৃত্ত ইনসুলিন দেহে মেদ বিভাজনকে প্রতিহত করে, যা আপনার পেশীগুলিতে অতিরিক্ত, অব্যবহৃত শরীরের মেদ হিসাবে সঞ্চিত থাকে। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের ওজন বৃদ্ধি হওয়ার এটি হল সহজতম উপায়।

ডায়াবেটিসে ওজন বাড়ার আর একটি কারণ শর্করার মাত্রা বৃদ্ধির সাথেও সম্পর্কিত। রক্তে শর্করার এই উচ্চ স্তরগুলি (বা রক্তে শর্করা, যা শক্তির জন্য প্রয়োজনীয়) যেহেতু কার্যকরভাবে শরীরের কোষ দ্বারা শোষিত হয় না, তাই সেগুলির অভিপ্রেত ব্যবহার করা হয় না। ফলস্বরূপ, এগুলি প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে বার করে দেওয়া হয়। তবে শরীর এখনও গ্লুকোজ থেকে বঞ্চিত, সে কারণে আরও বেশি প্রয়োজন বলে সংকেত প্রেরণ করে আমাদের বিশ্বাস করতে বাধ্য করে যে আমাদের আরও শর্করার প্রয়োজন আছে। সেই অর্থ অনুযায়ী কোনও ব্যক্তি ক্ষুধার্ত বোধ করেন অর্থাৎ তার ক্ষুধা বৃদ্ধি হয়, যা যদি নিয়ন্ত্রণ না করা হয় বা খেয়াল না করা হয় তবে তা আমাদের সহজেই অস্বাস্থ্যকরভাবে আরও বেশি খাবার খেতে পরিচালিত করতে পারে। বলা বাহুল্য, ওজন বৃদ্ধি এই চক্রের সবচেয়ে সুস্পষ্ট পরিণতি।

তবে, আপনি ভাবতে পারেন যে আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকলেও কিভাবে ওজন বেড়ে যাওয়া আপনার কাছে একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, আপনার ডায়াবেটিসের ওষুধগুলি বা অন্যান্য কোনও অবস্থা যার জন্য আপনি চিকিৎসা করাচ্ছেন, দায়ী হতে পারে।

ডায়াবেটিসে ওজন বৃদ্ধি কিভাবে নিয়ন্ত্রণ করবেন

আজকালকার দিনে, প্রচলিত জীবনযাত্রা এবং ডায়েট তাদের স্বাস্থ্যের শীর্ষে থাকা সত্ত্বেও প্রত্যেক ব্যক্তির ওজন সম্পর্কিত সমস্যার জন্য প্রচুর অবদান রাখে। এই পরিস্থিতিটি বিবেচনা করে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তির ওজন বাড়ানোর বিষয়ে আরও সতর্ক হওয়া উচিৎ এবং চর্বি ঝরিয়ে স্বাস্থ্যকর হওয়ার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিৎ।

যদিও এটি ডায়াবেটিসের মতো অবস্থার সাথে অবশ্যই আরও কঠিন হয়ে ওঠে, ডায়াবেটিসে ওজন বেড়ে যাওয়া নিয়ন্ত্রণ করা বা ওজন হ্রাস করতে কয়েকটি প্রাথমিক পদক্ষেপের প্রয়োজন যা সবাই অনুসরণ করতে পারেন। এখানে কয়েকটি প্রাথমিক অভ্যাস রয়েছে যেগুলি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিরা ওজন হ্রাস করার চেষ্টা করার জন্য শুরু করতে পারেন:

প্রথমত, ডায়েটের প্রতি সচেতন মনোনিবেশ কেবল ওজন হ্রাস করার জন্য নয়, স্বাস্থ্যকর হওয়ার জন্যও প্রয়োজনীয়। সুষম খাদ্য খাওয়া এবং স্বাস্থ্যকর স্ন্যাকিংয়ের বিকল্পগুলি বেছে নেওয়া এমন কিছু বিষয় যা আমাদের অনুসরণ করা উচিৎ। তা ছাড়া, ঘন ঘন অল্প পরিমাণে খাওয়া আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা এবং ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটি পরস্পরবিরোধী বলে মনে হতে পারে তবে প্রতি 2-3 ঘন্টা অন্তর অল্প পরিমাণে খাবার খাওয়া আপনাকে ক্ষুধার্ত হওয়া এবং ফলস্বরূপ অত্যধিক খাবার খাওয়া থেকে দূরে থাকতে সহায়তা করে এবং আপনাকে পুষ্ট রাখে।

দ্বিতীয়ত, পর্যাপ্ত জল পান করুন। প্রায়শই না হলেও, আমাদের শরীরের যেমন খাদ্যের প্রয়োজন, ঠিক তেমনই জলের প্রয়োজনীয়তার কথা পড়ি। জল আমাদের শরীরকে সুস্থ ও পুষ্ট রাখার জন্য শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থগুলি বের করে দেওয়ার মত গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে। প্রতিদিন ছয় থেকে আট গ্লাস জল সাধারণত সুপারিশ করা হয়। যদি তা ইতিমধ্যে আপনার কাছে খুব বেশি মনে হয়, তবে মনে করে আপনার সাথে সর্বত্র একটি জলের বোতল রাখা উচিৎ এবং বারবার ছোট ছোট চুমুকে জল খাওয়া শুরু করুন।

তৃতীয়ত, শরীরকে সক্রিয় রাখুন! অতিরিক্ত ওজন ঝরানোর জন্য আপনি কি কি পদক্ষেপ নিচ্ছেন তা নির্বিশেষে, কিছু শারীরিক ক্রিয়াকলাপ আপনার পরিকল্পনার অংশ হওয়া উচিৎ। এই পেশীগুলির জন্য কিছু অনুশীলন করা কেবলমাত্র আপনার ওজন হ্রাস করতেই সহায়তা করে না, এটি অন্যান্য স্বাস্থ্য পরিস্থিতি উপশম করে, মানসিক চাপ থেকে মুক্তি দেয় এবং আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে সহায়তা করে। এছাড়াও, শারীরিক ক্রিয়াকলাপের জন্য এমন কিছু কঠোর অনুশীলন পদ্ধতি করতে হবে না যা আপনাকে নিংড়ে নেয়। আপনার পছন্দসই বা যেগুলি করতে ভালো লাগে, সেগুলিই বেছে নিন, যেমন, জগিং, খেলাধুলা, নাচ, যোগাসন ইত্যাদি। পছন্দ সম্পূর্ণ আপনার!

এছাড়াও, আপনি যদি এখন কিছু সময় ধরে কিছু না করে থাকেন তবে ধীরে শুরু করুন। আপনার বয়স বা ওজন কোনও ফ্যাক্টর নয়, সুস্থতার জন্য আপনার সদিচ্ছাই আপনাকে গাইড করবে।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, আপনার পুষ্টিবিদের সাথে পরামর্শ করুন। পুষ্টিবিদরা আপনার অবস্থা এবং আপনার স্বাস্থ্যের প্রয়োজনীয়তাগুলি বোঝার জন্য প্রস্তুত। তারা কেবল আপনার শরীরের জন্য সঠিক ধরণের ডায়েট সহ আপনাকে গাইড করতে পারেন না, তারা আপনার জন্য উপযুক্ত এমন কিছু সুপারফুডগুলিও সুপারিশ করতে পারেন যা আপনাকে ওজন হ্রাস করতে সহায়তা করে এবং সেই সাথে আপনার অন্যান্য সমস্যাগুলিরও সমাধান করতে পারে।

অতিরিক্তভাবে, আপনি নিয়মিত রক্তে শর্করার মাত্রার ওপর নজর রাখছেন তা নিশ্চিত করুন। আপনার রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কতবার এবং কখন আপনাকে নিরীক্ষণ করতে হবে তা জানতে আপনার চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করুন।

ওজন বৃদ্ধি কি ডায়াবেটিসের লক্ষণ?

ওজন বাড়া-কমা ডায়াবেটিসের অন্যতম প্রাথমিক এবং সবচেয়ে লক্ষণীয় উপসর্গ। ডায়াবেটিস যখন নিয়ন্ত্রণহীন অবস্থায় থাকে বা এটি নিয়ন্ত্রণে কোনও বাহ্যিক প্রচেষ্টা করা না হয়, তখন সাধারণত এটি দেখা যায়। যদিও আমরা দ্রুত ওজন হ্রাসকে প্রাথমিক ডায়াবেটিসের লক্ষণ হিসাবে জানি, ওজন বৃদ্ধি পরবর্তী পদক্ষেপ হিসাবে দেখা যেতে পারে। ডায়াবেটিসের এই পর্যায়ে, আপনি প্রস্রাবের মাধ্যমে সমস্ত অব্যবহৃত গ্লুকোজ হারাচ্ছেন কারণ ইনসুলিন সঠিকভাবে তার কার্য সম্পাদন করতে অক্ষম হয়ে পরে। এখানে, আপনি ক্যালরিও হারাচ্ছেন। এভাবেই আপনার ওজন হ্রাস হয়।

এদিকে, আপনার অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস বাড়ার সাথে সাথে আপনার দেহ প্রতিদিনের কাজের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে শর্করা বা গ্লুকোজ পায় না। এটি আরও বেশি খাবারের প্রয়োজন হিসাবে ব্যাখ্যা করে এবং আপনার মস্তিষ্কে সেই সংকেত পাঠায়। তখন আপনার মস্তিষ্ক আপনাকে পরামর্শ দেয় যে শরীরের আরও বেশি খাবারের প্রয়োজন, এবং আপনি সেই অনুযায়ী অতিরিক্ত খাবার খান যা কেবলমাত্র আপনার ক্যালোরিগুলিকে বাড়িয়ে তোলে। এবং এইভাবে আপনি ডায়াবেটিসের সময়কালে ওজন বাড়ান।

যদি আপনার এখনও ডায়াবেটিস ধরা না পড়ে থাকে, তবে এটি সত্যই আপনার জন্য সমস্যার একটি সংকেত হতে পারে। এই জাতীয় ওজন সম্পর্কিত সমস্যাগুলি এড়াতে যা কেবলমাত্র আপনার অবস্থার জন্য অবদান রাখতে পারে, অজ্ঞাত কারণে ওজন হ্রাসের প্রথম নিদর্শনেই আপনার চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করার সুপারিশ করা হয়। ডায়াবেটিস শুরুর আগে আপনার ওজন হ্রাস করে এবং একটি সাধারণ বডি মাস ইনডেক্স (বিএমআই) এ পৌঁছে আপনি প্রতিরোধের দিকে আরও একটি স্বাস্থ্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেন।

মোট কথা, ওজন বৃদ্ধি হল নিশ্চিতভাবে ডায়াবেটিসের লক্ষণ যা ইতিমধ্যে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। আপনি যত দ্রুত প্রতিকারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন তত দ্রুত আপনি সুস্বাস্থ্য অর্জন করবেন।

ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তি, যাদের ওজন কমে যাওয়ার অভিজ্ঞতা আছে, তারা কিভাবে স্বাস্থ্যকরভাবে ওজন ফিরে পেতে পারেন?

সাধারণ বিএমআই রেঞ্জের নীচে যাওয়াও স্থূলকায় হওয়ার মতোই অস্বাস্থ্যকর। কোনও ভারতীয় প্রাপ্তবয়স্কের জন্য, স্বাস্থ্যকর ওজন নির্দেশকারী বিএমআই শুরু হয় 18.5 থেকে; এর নীচে যে কোনও সংখ্যাকে ওজন কম বলে বিবেচনা করা হয়। সুতরাং ওজন কম হওয়ায় খুব বেশি খুশি হবেন না।

ডায়াবেটিসে আক্রান্ত বাঞ্ছিত ওজনের চেয়ে কম ওজনবিশিষ্ট ব্যক্তি বা যারা তাদের স্বাস্থ্যের জন্য অতিরিক্ত কয়েক কিলো বাড়াতে চান, তাদের ধীর গতিতে শুরু করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। ওজন বাড়ানো বা ওজন হ্রাস, দ্রুত ফলাফল কার্যকর হয় না বা দীর্ঘমেয়াদে টেকসই হয় না। ছোট পদক্ষেপ দিয়ে শুরু করাই সেরা পদ্ধতি।

ওজন হ্রাসের মতো, ডায়েট ওজন বাড়ানোর ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আপনার ডায়েট ওজন বাড়ানোর জন্য উপযুক্ত করতে কয়েকটি জিনিস আপনি করতে পারেন:

সারা দিনের জন্য আপনার খাবারের পরিকল্পনা করুন এবং সম্ভব হলে সেগুলি আপনার সাথে রাখুন। আপনার কাছে চিনি বোঝাই অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার বিকল্প নেই; এটি এড়িয়ে যাওয়া ভাল। এমনকি ডায়াবেটিস না থাকলেও আপনার এগুলি সম্পর্কে অতিরিক্ত সতর্ক থাকা উচিৎ।

খাবারের জন্য স্বাস্থ্যকর ক্যালোরি বেশি বেছে নিন। অন্যান্য পুষ্টিকর গোষ্ঠীগুলির সাথে আপস না করে প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর কার্বসগুলি আপনার খাবারে যথাযথ অনুপাতে অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ।

অল্প পরিমাণে বারবার খাবার খাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। হ্যাঁ, ওজন হ্রাস সম্পর্কেও আমরা এটিই বলেছিলাম। তবে উপযুক্ত বিরতিতে স্বাস্থ্যকর, অল্প পরিমাণে খাবার খাওয়া উভয় ক্ষেত্রেই কাজ করে। যখন আপনার শরীরের পুষ্টির প্রয়োজন তখন অবশ্যই এটি বিদ্রোহ করার আগেই করা উচিৎ। খিদে পাবে না!

শারীরিক ক্রিয়াকলাপ হল আপনার জীবনযাত্রার পরবর্তী সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অন্তর্ভুক্তি, এমনকী যখন আপনি নিজের ওজন বাড়াতে চান, তখনও। উপবিষ্ট জীবনধারা দিয়ে ওজন বাড়ানো স্থূলতার দিকে যেতে পারে এবং আমরা অবশ্যই এটি চাই না। তবে, যদি আপনি ব্যায়াম করা বেছে নেন, আপনি পেশির ওজন বাড়িয়ে তুলছেন, যা আপনি এই পর্যায়ে চান। সুতরাং, চলুন, শুরু করা যাক!

পর্যাপ্ত জল পান করুন! সমস্ত টক্সিন বের করে দিন এবং আপনার শরীরকে হাইড্রেটেড বোধ করতে দিন। আপনি যদি ইতিমধ্যে শরীরের ওজন কম নিয়ে সমস্যায় থাকেন তবে আসুন আমরা এতে ডিহাইড্রেশনের বোঝা আর যুক্ত করব না। আপনার শরীরে জলের অভাব ক্লান্তি, মাথা ঝিমঝিম, কোষ্ঠকাঠিন্য, পেশীর ব্যথা এবং খাবারের জন্য আকাঙ্খা বাড়াতে পারে। সুতরাং জল পান করতে ভুলবেন না।

রাতে ভাল করে ঘুমান। সমস্ত বিভ্রান্তি দূরে সরিয়ে রাখুন এবং আপনার সাধ্যের মধ্যে সর্বোত্তম ঘুম পান। আপনার বিশ্রামের সময়ের কার্পণ্য করা মানে আপনি সরাসরি আপনার দিনের গুণমানকে প্রভাবিত করছেন। অধ্যয়নগুলি সুপারিশ করে যে এটি আপনার প্রতিরোধ ক্ষমতাও দুর্বল করতে পারে এবং হাইপারটেনশনের মতো হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ানোর মতো পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে।

নিয়মিত রক্তে শর্করার মাত্রা পর্যবেক্ষণের পরামর্শ দেওয়া হয়। আপনার ওজনের বাড়া-কমা এবং সম্পর্কিত অবস্থা ডায়াবেটিসকে প্রভাবিত করতে বাধ্য। নিয়মিত রক্তে গ্লুকোজের মাত্রায় নজর রাখলে সেই অনুসারে আপনার অ্যাক্টিভিটিগুলির তালিকা তৈরি করতে সহায়তা করে।

ডায়াবেটিস ওজন বেড়ে যাওয়া এবং ওজন হ্রাসের পরিস্থিতিকে আরও জটিল করে তোলে। তবুও, ডায়েট, শারীরিক ক্রিয়াকলাপ এবং আপনার প্রয়োজন অনুসারে অন্যান্য পদক্ষেপের সংমিশ্রণ গ্রহণ করে স্বাস্থ্যকর পরিসরে আপনার ওজন বজায় রাখা জরুরি। আপনি নিঃসন্দেহে নিজেকে এমন অ্যাপ্লিকেশনস দিয়ে সহায়তা করতে পারেন যা আপনার ডায়েট এবং শারীরিক ক্রিয়াকলাপের উপর নজর রাখতে পারে, বিশেষত যেগুলি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত মানুষের প্রয়োজন অনুসারে উপযুক্ত। এছাড়া, ডায়াবেটিস কিভাবে আপনার ওজনকে প্রভাবিত করছে তা জানতে আপনার চিকিৎসক এবং পুষ্টিবিদের পরামর্শ নিন।

Loved this article? Don't forget to share it!

Disclaimer: The information provided in this article is for patient awareness only. This has been written by qualified experts and scientifically validated by them. Wellthy or it’s partners/subsidiaries shall not be responsible for the content provided by these experts. This article is not a replacement for a doctor’s advice. Please always check with your doctor before trying anything suggested on this article/website.