heart health tips
Reading Time: 4 minutes

আপনি একটি নতুন ফোন কিনেছেন, সেইটির বিষয়ে সব কিছু জানতে আপনি স্পষ্টতই খুব উত্তেজিত বোধ করবেন। লক্ষ্য করে দেখবেন আপনার নতুন ফোনটি খুব দ্রুত সমস্ত তথ্য খুঁজে নিতে পারে। সেটি অনেক বেশি সহজে সব কাজ ঝটপট করে ফেলে, শুধু তাই না, সব রকম সূক্ষ্ম কাজও করতে পারে নিপুণ ভাবে। আপনি যখন আপনার নতুন ফোনে ব্রাউজ করেন, তথ্য খুঁজতে গিয়ে সেইটি কখনোই যখন তখন নিথর হয়ে যায় না। কিমবা এইটি ঘনঘন ডিসচার্জ হয়ে আপনাকে হতাশ করে না। এমনকী এই নতুন ফোনটি কেনার সময় আপনি আপনার পুরোনো ফোনটি এর সাথে পালটে নিয়ে বিনিময়ে কিছু অতিরিক্ত সুবিধাও পেয়েছেন। কিন্তু আপনার হৃদযন্ত্রের বেলায় এমনটি কখনোই হয় না। হৃদযন্ত্র খারাপ হলে সেইটি পালটে আপনি নতুন একটি হৃদযন্ত্র লাগিয়ে নিলেন, এমনটা দুঃস্বপ্নেও ভাবা যায় না। যে কোনো ফো্নের ক্ষমতা নির্ভর করে কীভাবে আপনি সেটাকে ব্যবহার করেন তার ওপর, দায়িত্ব-জ্ঞানহীন ভাবে ব্যবহারের ফলে ফোনের ক্ষমতা কমে যায়, তেমনি অস্বাস্থ্যকর জীবন যাপন করলে আপনার হৃদযন্ত্রের কাজ করার ক্ষমতাও কমে যেতে বাধ্য।

অপটু বা দুর্বল হৃদযন্ত্রের পক্ষে শরীরের সব অঙ্গে সমান ভাবে রক্ত সঞ্চালন করা সম্ভব হয় না। এরকম অবস্থা মানেই আপনার হৃদযন্ত্র বা এর কোনো অংশে কোনো রোগ হয়েছে। এই অবস্থায় আপনি জানবেন আপনার রোজকার জীবন যাপন করা আগের থেকে কঠিন হয়ে যাবে।

আপনার হৃদযন্ত্রকে আরও দীর্ঘদিন সুস্থ রাখার জন্য আপনি কি কিছু করতে পারেন?

আপনার হৃদযন্ত্রকে ঝুঁকিতে ফেলার কারণগুলির দীর্ঘ তালিকার বাইরেও, আপনার হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে আপনি আপনা্র জীবন যাপনে ঝটপট কয়েকটি পরিবর্তন করতে পারেন[1]

ডায়াবেটিস: ডায়াবেটিস রোগটাকে আমরা অনেকটা পদী-পিসির বর্মী বাক্স বলতে পারি। যেমন ওই সব পেয়েছির বাক্স একবার খুলতে পারলে আপনি অনায়াসে যা চান সেটাই পেয়ে যেতে পারেন, ঠিক তেমনি একবার ডায়াবেটিস রোগে আপনি আক্রান্ত হলে অন্য নানা রকম রোগ সম্পর্কিত জটিলতা তৈরি হবার সম্ভাবনা ঘটতে পারে। ডায়াবেটিস ধরা পড়েছে এমন রুগীদের শরীরে সাধারণত লিপিড বা কোলেস্টেলের মাত্রা স্বাভাবিকের থেকে অনেক বেশি থাকে যার ফলে তাদের রক্তনালীতে কোলেস্টেরল জমে যাওয়ার প্রবণতা অনেক বেশি থাকে। সেই কারণে, আপনার হৃদযন্ত্রের পক্ষে শরীরে রক্ত সঞ্চালন করা কঠিন হয়ে পড়ে।[2] আপনার হৃদযন্ত্র ক্রমে তার কার্য-ক্ষমতা হারাতে শুরু করে। 2019-র জানুয়ারীতে প্রকাশিত একটি সাম্প্রতিক প্রকাশনায় বলা হয়েছে যে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের হৃদযন্ত্র বিকল হবার সম্ভাবনা স্বাভাবিকের থেকে দ্বিগুণ হয়ে থাকে।[3]

আপনি জিজ্ঞাসা করতেই পারেন,”এই ডায়াবেটিস রোগ থেকে আমি কীভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে পারি?” সে ক্ষেত্রে আমরা বলব নিশ্চয়ই, আপনি যদি মনে করেন যে আপনার কোনোভাবে ডায়াবেটিস রোগের ঝুঁকির সম্ভাবনা রয়েছে, তবে সেই ক্ষেত্রে রোগ প্রতিরোধ করতে, আপনি কোনো পেশাগত সহায়তা নিন।[4]এর ফলে সেই পদী পিসির বর্মী বাক্স সহজেই বন্ধ থাকবে।

স্থূলতা: প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে, অতিরিক্ত ওজন আপনার হৃদযন্ত্রের স্বাভাবিক কাজের ক্ষমতাকে কমিয়ে দেয়। 2018 সালের নভেম্বর মাসে প্রকাশিত পর্যালোচনা অনুসারে, যে সমস্ত লোকজনের স্বাস্থ্যকর ওজনের তুলনায় গড় ওজন বেশি তাদের হৃদযন্ত্র বিকল হওয়ার সম্ভাবনা সুস্থ মানুষের সম্ভাবনার সময়কালের 10 বছর আগে দেখা দেয়। আপনার BMI-তে প্রতি 1 kg/m2 ওজন বৃদ্ধি হলে, তা আপনার হৃদযন্ত্র বিকল হওয়ার ঝুঁকি 5% বাড়িয়ে তুলতে পারে![5]অতএব আপনার অতিরিক্ত ওজন কমানর জন্য উপরোক্ত তথ্যগুলি যথেষ্ট কারণ বলে মনে হয় না কি?

খুব বেশি নুন খাওয়া: এক বাটি মুচমুচে আলুর চিপস সবারই খুব পছন্দের খাবার। সম্পূর্ণ চিপসের প্যাকেটটি যে কত তাড়াতাড়ি শেষ করে ফেলি আমরা তা বুঝতেও পারি না! তবে, সেই চিপসের সাথে যে পরিমাণ নুন খাওয়া হয় তা আমাদের শরীর-স্বাস্থ্যের জন্য খুবই বিপজ্জনক। 

নুনে সোডিয়াম থাকে।শরীরে অতিরিক্ত সোডিয়াম থাকলে শরীরের জল-ধারণ ক্ষমতা বেড়ে যায়, যা প্রয়োজনের চেয়ে বেশিও হতে পারে। এবং এর ফলে আপনার হৃদযন্ত্র ও ফুসফুসের চারপাশে জলীয় একটি আবরণ তৈরি হতে থাকে। সোডিয়ামের মাত্রা বাড়লে পায়ের পাতা ফুলে যাওয়ার সম্ভাবনা ও দেখা যায়।[6]

ধূমপান: ধূমপান আপনার মৃত্যুর কারণ হতে পারে” বাজারে যে সব সিগারেটের প্যাকেট বিক্রি হয় সেগুলির প্রতিটিতেই এমনটি লেখা আছে তা আমরা দেখতে পাই। সিগারেটের সব রকম বিজ্ঞাপনেও সেটাই লেখা থাকে। ধূমপান কেবল আপনার ফুসফুসের ক্ষতি করে তাই নয় এটি আপনার হৃদযন্ত্রের কাজ করার ক্ষমতাও কমিয়ে দিতে পারে।[1] হৃদযন্ত্র বিকল হবার সম্ভাবনা কমাতে আজই ধূমপান করার অভ্যাস ছেড়ে দিন।

নিয়মিত ব্যায়াম বা কায়িক শ্রম একেবারেই না করা: আজকাল বেশিরভাগ মানুষকেই কাজের জায়গায় এক ভাবে বসে বসে কাজ করতে হয়; আমরা সারাটা দিন একটা কম্পিউটারের পর্দার সামনে একভাবে বসে কাজ করে যাই। এই ধরনের কাজের জন্য আমরা অনেক উচ্চ-বেতন পাই, কিন্তু এই চাকরিতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বরাদ্দ কাজ শেষ করে জমা করে দেওয়ার চাপ থাকে প্রচণ্ড। আর এই কাজের চাপ জনিত উৎকণ্ঠাই হয়ে যায় হৃদযন্ত্র বিকল হবার প্রধান কারণ।[1] শারীরিক ভাবে নড়াচড়া একেবারেই কমে যাওয়ার কারণে কোমরে মেদ জমতে শুরু করে, ক্রমে আপনার চেহারার স্থূলত্ব বাড়তে থাকে। ওজন বাড়ার কারণে সব রকম উপসর্গ আপনার শরীরে দেখা দেয়। অতএব সুস্থ থাকতে হলে, একঘণ্টা পর পর একবার করে নিজের চেয়ার থেকে উঠে, 5-10 মিনিটের জন্য একটু করে হেঁটে নিন। আপনি ও আপনার হৃদযন্ত্র উভয়েই ভালো থাকবেন।

সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে সাথে ডাক্তাররাও সকলেই কেন সক্রিয় জীবনযাত্রাকে সমর্থন করেন এতক্ষণে আপনার কাছে এইটুকু নিশ্চয়ই পরিষ্কার হয়েছে বলে আমরা আশা রাখি। তুলনা করে দেখলে দেখতে পাবেন ভারতীয়দের মধ্যে যে বয়েসে হৃদযন্ত্র বিকল হওয়ার মতো রোগ হতে দেখা যায় তা পশ্চিমের মানুষদের থেকে প্রায় 10 বছর কম।[7] সুতরাং সজাগ ও সচেতন হওয়ার সময় হয়েছে। আপনার বয়স, লিঙ্গ, পারিবারিক ইতিহাস বা জিনগত কারণ এসব কিছুই পরিবর্তন করা যায় না। তবে আপনি রোজকার নিয়মে সামান্য কিছু পরিবর্তন করে নিজের জন্য সুন্দর স্বাস্থ্যকর জীবন যাপনের পদ্ধতি নিশ্চয়ই বেছে নিতে ভুল করবেন না। সুস্থ জীবনই অনেক বেশি দিন আপনার হৃদযন্ত্রকে সচল রাখবে!

সূত্র:

  1. Congestive heart failure- are you at risk? [Internet]. [cited 2019 Jul 18]. Available from: https://www.crh.org/service-centers/heart-and-vascular-center/congestive-heart-failure-risks.
  2. Causes of heart failure [Internet]. 2019 [updated 2017 May 31; cited 2019 Jul 18]. Available from: https://www.heart.org/en/health-topics/heart-failure/causes-and-risks-for-heart-failure/causes-of-heart-failure.
  3. Kenny HC, Abel ED. Heart failure in type 2 diabetes mellitus. Circ Res. 2019 Jan 04;124(1):121-141. doi:10.1161/CIRCRESAHA.118.311371.
  4. Preventing type 2 diabetes [Internet]. [updated 2016 Nov; cited 2019 Jul 18]. Available from: https://www.niddk.nih.gov/health-information/diabetes/overview/preventing-type-2-diabetes.
  5. Csige I, Ujvárosy D, Szabó Z, Lőrincz I, Paragh G, Harangi M, Somodi S. The impact of obesity on the cardiovascular system. J Diabetes Res. 2018;2018:3407306. doi:10.1155/2018/3407306.
  6. Heart failure diet: Low sodium [Internet]. [updated 2019 May 01; cited 2019 Jul 18]. Available from: https://my.clevelandclinic.org/health/diseases/17072-heart-failure-diet-low-sodium.
  7. Guha S, Harikrishnan S, Ray S, Sethi R, Ramakrishnan S, Banerjee S, et al. CSI position statement on management of heart failure in India. Indian Heart J. 2018 Jul;70(Suppl 1):S1-S72. doi:10.1016/j.ihj.2018.05.003.

Loved this article? Don't forget to share it!

Disclaimer: The information provided in this article is for patient awareness only. This has been written by qualified experts and scientifically validated by them. Wellthy or it’s partners/subsidiaries shall not be responsible for the content provided by these experts. This article is not a replacement for a doctor’s advice. Please always check with your doctor before trying anything suggested on this article/website.