Reading Time: 6 minutes

বিশেষজ্ঞ-পর্যালোচনা করেছেন অশ্বিনী এস কানাডে, 17 বছরের অভিজ্ঞতাসহ রেজিস্টার্ড ডায়েটিশিয়ান এবং ডায়াবেটিসের সার্টিফায়েড শিক্ষক

তথ্য পরীক্ষা করেছেন আদিত্য নার, বি.ফার্ম, এমএসসি, জনস্বাস্থ্য এবং স্বাস্থ্যবিষয়ক অর্থনীতি

আপনার ডায়াবেটিস সদ্য ধরা পড়ুক অথবা আপনি কয়েক বছর ধরেই ডায়াবেটিসে ভুগুন না কেন, এটা নিয়ন্ত্রণ করার সব থেকে ভালো উপায় হল কীরকমের চিকিৎসা পদ্ধতি আছে সে বিষয়ে সঠিকভাবে জানা। বেশিরভাগ মানুষই ডায়াবেটিসের চিকিৎসায় ইনসুলিনের ভূমিকা জানলেও, অনেকেই সাধারণ তথ্যের বেশি জানেন না।

সুতরাং, প্রত্যেক ডায়াবেটিসের রোগীর ইনসুলিন সম্পর্কে এমন কী কী গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানা উচিত? চলুন, দেখা যাক।

ইনসুলিন কী?

আপনার পরিপাকব্যবস্থা আপনার খাওয়া খাবারে থাকা কার্বোহাইড্রেটকে ভেঙে গ্লুকোজে পরিণত করে। আপনার অগ্ন্যাশয়ে থাকা ইনসুলিন নামক হরমোন, এই গ্লুকোজ শোষণ করতে সাহায্য করে এবং আপনার দেহে কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাটের বিপাক পরিচালনা করে।

টাইপ 1 ডায়াবেটিসের ক্ষেত্রে, শরীর ইনসুলিন তৈরি করতে পারেনা, টাইপ 2 ডায়াবেটিসের ক্ষেত্রে, হয় শরীর যথেষ্ট পরিমাণ ইনসুলিন তৈরি করে না বা তৈরি করলেও তা কার্যকরভাবে ব্যবহার করতে পারেনা। সুতরাং, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ইনসুলিনের প্রয়োগ চিকিৎসার একটি অপরিহার্য অঙ্গ।

কাদের বাইরে থেকে ইনসুলিনের নিয়ন্ত্রণ প্রয়োজন হয়?

আপনার শরীরে যথেষ্ট পরিমাণ ইনসুলিন উৎপাদন না হলে, তা পূরণ করার জন্য ওষুধের আকারে দেওয়া হয়ে থাকে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই, ডাক্তাররা ইনসুলিন থেরাপির পরামর্শ দেবেন যদি:

  • আপনার টাইপ 1 ডায়াবেটিস থাকে,
  • আপনার অনিয়ন্ত্রিত টাইপ 2 ডায়াবেটিস থাকে,[1]
  • আপনার খাওয়াদাওয়া, ব্যায়াম এবং খাওয়ার ওষুধগুলো সুগার নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না,[2]
  • আপনার টাইপ 1 বা টাইপ 2 ডায়াবেটিস রয়েছে এবং আপনি গর্ভধারণ করেছেন,[2]
  • আপনার টাইপ 1 বা টাইপ 2 ডায়াবেটিস রয়েছে এবং আপনার একটা অপারেশন হবে।[3]

টাইপ 2 ডায়াবেটিসের রোগীদের ইনসুলিন দরকার কেন?

সাধারণত, টাইপ 2 ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের জন্য কয়েক বছর ধরে স্বাস্থ্যকর খাওয়াদাওয়া এবং ব্যায়ামের পাশাপাশি বিভিন্ন ওষুধ খাওয়ার পরপর পদক্ষেপযুক্ত প্রয়োগ ব্যবহার করা হয়।

রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণের জন্য একটা খাওয়ার ওষুধ দিয়ে চিকিৎসা শুরু হয়। যদি অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস একই অবস্থায় থাকে অথবা সময়ের সাথে সাথে ওষুধের কাঙ্ক্ষিত কার্যকারিতা বন্ধ হয়ে যায়, তবে পরবর্তী পদক্ষেপ হল অনেকগুলো খাওয়ার ওষুধের মিশ্রণ প্রয়োগ করা যা আরও ভালোভাবে কাজ করতে পারে।

খাওয়ার ওষুধ, ডায়েট এবং ব্যায়াম রক্তে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করার জন্য যথেষ্ট না হলে টাইপ 2 ডায়াবেটিসের রোগীদের ইনসুলিন প্রয়োজন হয়।[4]

তবে শেষ পদক্ষেপ হিসাবে ইনসুলিন আর ব্যবহার করা হয়না। এমনকি, বর্তমান চিকিৎসার নির্দেশিকাতে সুপারিশ করা হয় যে টাইপ 2 ডায়াবেটিসের রোগীরা যত আগে থেকে ইনসুলিন নেওয়া শুরু কররেন, ততই ভালো। আপনার যদি সদ্য টাইপ 2 ডায়াবেটিস ধরা পড়ে, আপনার ডাক্তার হয়ত ইনসুলিন থেরাপি নেওয়ার উপদেশ দেবেন যদি আপনার:[2]

  • অত্যধিক সুগারের লক্ষণ থাকে যেমন প্রচন্ড তেষ্টা (পলিডিপসিয়া),
  • অস্বাভাবিকভাবে বেশি পরিমাণ মূত্র ত্যাগ করেন (পলিইউরিয়া), ইত্যাদি
  • এবং/অথবা গ্লাইকোসায়লেটেড হিমোগ্লোবিন (HbA1c) > 10% হয়
  • এবং/অথবা রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা অত্যধিক বেশি (> 300 mg/d) থাকে

ওয়েং জে. এবং প্রমুখের দ্বারা কৃত একটা গবেষণা জানাচ্ছে যে সদ্য ধরা পড়া টাইপ 2 ডায়াবেটিস রোগীদের আগে থেকেই তীব্র/ইনটেনসিভ ইনসুলিন থেরাপি দেওয়া হলে তা শুধুমাত্র অগ্ন্যাশয়ের কর্মক্ষমতা বজায় রাখে তাই নয় বরং দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিসকে উপশমও করে।[5]

ইনসুলিন থেরাপি কীভাবে সাহায্য করে?

আপনার অগ্ন্যাশয় থেকে নিঃসৃত ইনসুলিন আপনার রক্তে সুগারের মাত্রা স্বাভাবিক রাখে। সুগারের মাত্রার প্রতি আপনার দেহের প্রতিক্রিয়া নিজে নিজেই হয়। সারারাত এবং খাবার খাওয়ার মধ্যবর্তী সময়ে রক্তে সুগারের মাত্রা ঠিক রাখার জন্য শরীর অল্প এবং অবজ্ঞাত/ব্যাকগ্রাউন্ড অবস্থার ইনসুলিন (ব্যাসাল ইনসুলিন) নিঃসরণ করে।

ইনজেকশন বা ইনসুলিন পাম্পের সাহায্যে নেওয়া ইনসুলিনের প্রভাব প্রায়ই প্রাকৃতিক ইনসুলিনের মত হয়। এটা ইনসুলিনের স্বাভাবিক মাত্রা ধার্য করে এবং আপনার অধিক ব্লাড সুগার কমাতে সাহায্য করে। এটা পেতে গেলে, আপনার ইনসুলিন থেরাপিতে যা থাকতে হবে তা হল:

  • ব্যাসাল ইনসুলিনের ব্যাকগ্রাউন্ড রিপ্লেসমেন্ট
  • বোলাস ইনসুলিনের সাহায্যে ক্যুইক বার্স্ট রিপ্লেসমেন্ট

গবেষণায় পাওয়া গেছে যে ডায়াবেটিসের কারণে হওয়া চোখের (রেটিনোপ্যাথি), কিডিনির (নেফ্রোপ্যাথি) এবং নার্ভের (নিউরোপ্যাথি) জটিলতার শুরু এবং অগ্রগতিকে তীব্র/ইনটেনসিভ ইনসুলিন থেরাপির সাহায্যে দেরি করানো যায়।[6]

ইনসুলিন কি বিভিন্নরকমের হয়?

পাঁচটি বিভিন্ন প্রকারের ইনসুলিন পাওয়া যায়। এগুলো কত তাড়াতাড়ি কাজ করে এবং তাদের প্রভাব কতক্ষণ ধরে থাকে তার ভিত্তিতে আলাদা করা হয়:[7]

দ্রুত-কাজ-করা ইনসুলিন●   মোটামুটি 15 মিনিটের মধ্যে কাজ করা শুরু করে

●   3 থেকে 5 ঘন্টা ধরে স্থায়ী হয়

কম-সময়-ধরে-কাজ-করা ইনসুলিন●   30 থেকে 60 মিনিটের মধ্যে কাজ করা শুরু করে

●   5 থেকে 8 ঘন্টা ধরে স্থায়ী হয়

মাঝারি-কাজ-করা ইনসুলিন●   1 থেকে 3 ঘন্টার মধ্যে কাজ করা শুরু করে

●   12 থেকে 16 ঘন্টা ধরে স্থায়ী হয়

দীর্ঘক্ষণ-ধরে-কাজ-করা ইনসুলিন●   মোটামুটি 1 ঘন্টার মধ্যে কাজ করা শুরু করে

●   20 থেকে 26 ঘন্টা ধরে স্থায়ী হয়

পূর্বে-মিশ্রিত ইনসুলিন●   2 ধরনের ইনসুলিনের মিশ্রণ

 

আপনার বয়স, দেহের ওজন, চিনি খাওয়া নিয়ন্ত্রণ, জীবনযাপন, আপনি কতবার ইনজেকশন নিতে চান এবং ইনসুলিনের প্রতি আপনি কেমন সাড়া দিচ্ছেন সেসবের উপরে নির্ভর করে আপনার ডাক্তার আপনার জন্য উপযুক্ত ইনসুলিন দেবেন।

ইনসুলিন কীভাবে প্রয়োগ করা হয়?

ইনসুলিন নেওয়ার সব থেকে সাধারণ উপায় হল সিরিঞ্জ ব্যবহার করা। আপনার ত্বকের নিচে থাকা ফ্যাটের স্তরে আপনি ইনসুলিন ইনজেক্ট করতে পারেন। আপনি ইনসুলিন পেন এবং পাম্পও ব্যবহার করতে পারেন।

ইনসুলিন পেন একটা কার্টিজ্‌ এবং পরিবর্তনযোগ্য ছুঁচের মাধ্যমে হরমোন পৌঁছে দেয়। আপনার দরকার মত মাত্রা এবং কতবার নেবেন তা আপনি ঠিক করতে পারেন। অন্যদিকে, ইনসুলিন পাম্প সরাসরি আপনার পকেটে, হাতের কবজির ব্যান্ড, বেল্ট অথবা অন্তর্বাসে আটকানো থাকে এবং আগে থেকে প্রোগ্রাম করে দেওয়া ইনসুলিনের পরিমাণ আপনার ত্বকের নিচে থাকা পাতলা টিউবে একটা স্থির মাত্রায় পাঠায়।

ইনসুলিন ইনজেকশন কি যন্ত্রণাদায়ক?

ইনজেকশনে ব্যথা হয় না। বর্তমানে ছুঁচ ফোটানো প্রায় ব্যথাহীন করার জন্য ইনসুলিন ইনজেকশনে খুবই ছোট ছুঁচ ব্যবহার করা।

তবে ইনসুলিন ইনজেকশনে আপনার ভীতি “মানসিকভাবে ইনসুলিনের প্রতিরোধ” নামক অবস্থার জন্য সৃষ্টি হতে পারে।[8] এই ক্ষেত্রে, আপনার যন্ত্রণাদায়ক ইনজেকশন, কম ব্লাড সুগার এবং ওজন বাড়ার ভয় থেকে ইনসুলিন নেওয়া শুরু করতে চাইবেন না। আপনার পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার কারণ হিসাবে আপনি ইনসুলিনকে দায়ী করতে পারেন এবং এটা স্থায়ী, নিয়ন্ত্রণমূলক এবং মেনে চলা শক্ত বলেও আপনার মনে হতে পারে।

ইনজেকশন ছাড়া ইনসুলিন নেওয়ার কোন পদ্ধতি আছে কি?

ইনসুলিন প্রয়োগ করার সব থেকে সাধারণ পদ্ধতি ইনজেকশন হলেও, আপনি ইনসুলিন ইনহেলার ব্যবহার করতে পারেন যাতে মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়ার মাধ্যমে ইনসুলিন পাউডারকে ফুসফুসে পাঠাতে হয়।

বিজ্ঞানীরা ইনসুলিনকে ট্যাবলেটের আকারে তৈরি করার চেষ্টা করছেন। তবে এটা এখনও চিকিৎসার পরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে।

আপনার কতবার ইনসুলিন নেওয়া উচিত?

আপনার প্রয়োজনের উপরে নির্ভর করে, আপনার ডাক্তার ঠিক করবেন যে আপনার কতবার ইনসুলিন নেওয়া দরকার। সাধারণত, আপনার ব্যাকগ্রাউন্ড ইনসুলিন নিয়ন্ত্রণ করার জন্য, আপনার প্রতিদিন একটা বা দু’টো ব্যাসাল ইনসুলিন ইনজেকশন দরকার যাতে সারাদিন ধরে অনবরত অল্প মাত্রায় ইনসুলিনের সরবরাহ বজায় থাকে। আপনি ইনসুলিন পাম্পও ব্যবহার করতে পারেন, যা আপনার শরীরের প্রয়োজন মত অনবরত ইনসুলিন পৌঁছে দেয়। আপনার খাবারে থাকা সুগারকে নিয়ন্ত্রণ করতে, আপনার খাওয়ার সময় অনুযায়ী বোলাস ইনসুলিনের সময় স্থির করা উচিত এবং খাওয়ার আগে তা নিতে হবে।

আপনার টাইপ 1 ডায়াবেটিস থাকলে, একটা ব্যাসাল ইনসুলিনের ডোজ্‌-এর পাশাপাশি আপনার প্রতিদিন বোলাস ইনসুলিনের অনেকগুলো ইনজেকশন নিতে হতে পারে অথবা ত্বকের নিচে অনবরত ইনসুলিনের সরবরাহ চালাতে হতে পারে। আপনার টাইপ 2 ডায়াবেটিস থাকলে, প্রতিদিনে আপনার ইনসুলিনের প্রয়োজনীয়তা একটা ইনজেকশন থেকে অনেকগুলো ইনজেকশনের মাত্রায় থাকতে পারে। আপনার সুগার নিয়ন্ত্রণের উপরে ভিত্তি করে, আপনার ব্যাসাল ইনসুলিন রিপ্লেসমেন্ট অথবা বোলাস ইনসুলিন রিপ্লেসমেন্ট অথবা উভয়েই, অথবা অনবরত সরবরাহ দরকার হতে পারে।

সাধারণত, আপনার খাওয়ার ওষুধের বিধির সঙ্গে এক ডোজ্‌ ব্যাসাল ইনসুলিন যোগ করে আপনার ইনসুলিন থেরাপি শুরু করা হয়।

ইনসুলিন রাখার সঠিক উপায় কী?

ইনসুলিন সঠিকভাবে রাখার কয়েকটি উপায় এখানে জানানো হল:

  • বন্ধ থাকা শিশি মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার আগে পর্যন্ত রেফ্রিজারেটারে রাখুন।
  • ইনজেকশনের আগে শিশিটাকে ঘরের তাপমাত্রায় আসতে দিন।
  • খুলে ফেলা শিশিকে ঘরের তাপমাত্রায় খুব বেশি হলে এক মাসের জন্য রাখুন। তার পরে এটাকে বাতিল করে দিন।
  • আপনার ইনসুলিনকে চরম তাপমাত্রায় রাখবেন না। সূর্যের আলো থেকে দূরে রাখুন। ফ্রিজে রাখবেন না।
  • রঙ, স্বচ্ছতা এবং গন্ধে পরিবর্তন হচ্ছে কিনা দেখুন। কোনরকম পরিবর্তন লক্ষ্য করলে ইনসুলিন ব্যবহার করবেন না।
  • মেয়াদোত্তীর্ণ ইনসুলিন ব্যবহার করবেন না।

ইনসুলিন ব্যবহার করার সময়ে এই 5টা ভুলের কোনটা আপনি করছেন কিনা তা দেখুন।

ইনসুলিন থেরাপির কি কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে?

ইনসুলিন ইনজেকশনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া খুবই বিরল। আপনার ইনজেকশনের জায়গায় লালচে ভাব হতে পারে, ফুলতে পারে এবং চুলকোতে বা ব্যথা হতে পারে। তবে এই লক্ষণগুলো কয়েকদিনের মধ্যে সেরে যায়। খুবই বিরল ঘটনায়, আপনার তীব্র অ্যালার্জির বিক্রিয়া হতে পারে।

খুব বেশি বা খুব কম ইনসুলিনের অবাঞ্ছিত প্রভাব থাকতে পারে। অত্যধিক বেশি পরিমাণ ইনসুলিনের কারণে ব্লাড সুগারের মাত্রা ক্ষতিকারকভাবে কম (হাইপোগ্লাসিমিয়া) হতে পারে, খুবই কম পরিমাণ ইনসুলিন নেওয়ার ফলে আপনার ব্লাড সুগারের মাত্রা খুব বেশি (হাইপারগ্লাইসিমিয়া) হয়ে যেতে পারে।

ইনসুলিন থেরাপিতে থাকলে আপনার ওজন বারতে পারে।[9] আপনার দীর্ঘস্থায়ী সুগারের নিয়ন্ত্রণ খারাপ হলে ইনটেনসিভ ইনসুলিনের চিকিৎসা আপনার ডায়াবেটিস-সংক্রান্ত চোখের রোগকে (ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি) ক্ষণস্থায়ীভাবে আরও খারাপ করে দিতে পারে।[10]

কী কী সাবধানতা অবলম্বন করবেন?

আপনি ইনসুলিন নিলে কিছু কিছু বিষয় মাথায় রাখা জরুরি:

  • ইনজেকশনের সঠিক পদ্ধতিটা ব্যবহার করুন এবং ইনসুলিনের সঠিক মাত্রা প্রয়োগ করুন
  • পুনর্ব্যবহারযোগ্য নয় এমন ছুঁচ এবং সিরিঞ্জ ব্যবহার করুন, কোনরকম ইনফেকশন থেকে বাঁচতে পুনর্ব্যবহারযোগ্য অংশগুলো জীবাণুমুক্ত করুন
  • প্রত্যেকটা ডোজ্‌ ত্বকের পরিষ্কার, অব্যবহৃত অংশে ইনজেক্ট করুন
  • রক্তে সুগারের ক্ষতিকারকভাবে কম মাত্রার (হাইপোগ্লাইসিমিয়া) লক্ষণগুলো খেয়াল রাখুন
  • আপনার ইনসুলিনের ব্যবহার, খাবারে কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণ এবং ব্যায়ামের মধ্যে ভারসাম্য রাখুন। খাবারে কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণ স্থির রাখুন। আপনার ডায়েট এবং শারীরিক সক্রিয়তায় পরিবর্তনের মাধ্যমে ইনসুলিনের মাত্রার সামঞ্জস্য রাখতে হতে পারে।
  • মদ্যপান আপনার হাইপোগ্লাইসিমিয়ার ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে[11]
  • ফুসফুসের দুরারোগ্য রোগ যেমন অ্যাজ্‌মা অথবা ফুসফুস-সংক্রান্ত দুরারোগ্য বাধাজনিত রোগ (অবস্ট্রাক্টিভ পালমোনারি ডিজ্‌অর্ডার) থাকলে শ্বাসের মাধ্যমে নেওয়া ইনসুলিন ব্যবহার করার পরামর্শ দেওয়া হয়না[12]
  • ধূমপান করলে অথবা সম্প্রতি ধূমপান করা বন্ধ করলে শ্বাসের মাধ্যমে নেওয়া ইনসুলিন ব্যবহার করবেন না [12]

    রেফারেন্সেস:
  • Vinik A. Advancing therapy in type 2 diabetes mellitus with early, comprehensive progression from oral agents to insulin therapy. Clin Ther. 2007 Jun;29(6 Pt 1):1236-53. Review. PubMed PMID: 18036387.
  • American Diabetes Association (ADA) 2017 Guidelines http://care.diabetesjournals.org/content/diacare/suppl/2016/12/15/40.Supplement_1.DC1/DC_40_S1_final.pdf
  • Husband DJ, Thai AC, Alberti KG. Management of diabetes during surgery with glucose-insulin-potassium infusion. Diabet Med. 1986 Jan;3(1):69-74. PubMed PMID: 2951140.
  • Yki-Järvinen H, Esko N, Eero H, Marja-Riitta T. Clinical benefits and mechanisms of a sustained response to intermittent insulin therapy in type 2 diabetic patients with secondary drug failure. Am J Med. 1988 Feb;84(2):185-92. PubMed PMID: 3044067.
  • Weng J, Li Y, Xu W, Shi L, Zhang Q, Zhu D, Hu Y, Zhou Z, Yan X, Tian H, Ran X, Luo Z, Xian J, Yan L, Li F, Zeng L, Chen Y, Yang L, Yan S, Liu J, Li M, Fu Z, Cheng H. Effect of intensive insulin therapy on beta-cell function and glycaemic control in patients with newly diagnosed type 2 diabetes: a multicentre randomised parallel-group trial. Lancet. 2008 May 24;371(9626):1753-60. doi: 10.1016/S0140-6736(08)60762-X. PubMed PMID: 18502299.
  • Diabetes Control and Complications Trial Research Group, Nathan DM, Genuth S, Lachin J, Cleary P, Crofford O, Davis M, Rand L, Siebert C. The effect of intensive treatment of diabetes on the development and progression of long-term complications in insulin-dependent diabetes mellitus. N Engl J Med. 1993 Sep 30;329(14):977-86. PubMed PMID: 8366922.
  • 7.http://www.diabetes.org/living-with-diabetes/treatment-and-care/medication/insulin/insulin-basics.html
  • Swinnen SG, Hoekstra JB, DeVries JH. Insulin Therapy for Type 2 Diabetes. Diabetes Care. 2009;32(Suppl 2):S253-S259. doi:10.2337/dc09-S318.
  • Russell-Jones D, Khan R. Insulin-associated weight gain in diabetes–causes, effects and coping strategies. Diabetes Obes Metab. 2007 Nov;9(6):799-812. Review. PubMed PMID: 17924864.
  • Davis MD. Worsening of diabetic retinopathy after improvement of glycemic control. Arch Ophthalmol. 1998 Jul;116(7):931-2. PubMed PMID: 9682709.
  • Arky RA, Veverbrants E, Abramson EA. Irreversible Hypoglycemia A Complication of Alcohol and Insulin. JAMA. 1968;206(3):575–578. doi:10.1001/jama.1968.03150030031006
  • Ghosh S, Collier A. Inhaled insulins. Postgraduate Medical Journal. 2007;83(977):178-181. doi:10.1136/pgmj.2006.053868.

Loved this article? Don't forget to share it!

Disclaimer: The information provided in this article is for patient awareness only. This has been written by qualified experts and scientifically validated by them. Wellthy or it’s partners/subsidiaries shall not be responsible for the content provided by these experts. This article is not a replacement for a doctor’s advice. Please always check with your doctor before trying anything suggested on this article/website.